শনিবার, ০১ এপ্রিল ২০২৩, ০৩:৫৬ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম :
মুকসুদপুরের দিগনগর ইউনিয়নে সৈর্দ্দী গ্রামেস্ত্রীকে হত্যার অভিযোগ চায়ের সঙ্গে সিকারেট ধূমপান করলে খাদ্যনালিতে ক্যানসার হয় বাগেরহাটে ৭০ বছরে বিয়ের পিঁড়িতে বসলেন সাবেক কলেজশিক্ষক শওকত আলী বাংলা দেশের সব মসজিদে খতম তারাবির নামাজ পড়ার আহ্বান গোপালগঞ্জের লতিফপুর ইউপি নির্বাচনে সংঘর্ষ ১ হাজার জনকে আসামি করে দুই মামলা গোপালগঞ্জে বঙ্গবন্ধুর জন্মবার্ষিকীতে তার সমাধিসৌধে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা নিবেদন বঙ্গবন্ধুর জন্মবার্ষিকীতে টুঙ্গিপাড়ায় আসছেন রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মুকসুদপুর উপজেলার নওহাটা গ্রামে বজ্রপাতে মাদ্রাসাছাত্র নিহত শিশু হাসানের চিকিৎসার জন্য দেশবাসীর কাছে সাহায্য চাই্রলেন তার মা বাবা। গোপালগঞ্জে যাত্রীবাহী ট্রেনের ধাক্কায় মোটর সাইকেল আরোহী স্কুলশিক্ষক নিহত
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যাচেষ্টা সহ ১৩টি মামলার আসামী আব্দুল হাই গ্রেফতার

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যাচেষ্টা সহ ১৩টি মামলার আসামী আব্দুল হাই গ্রেফতার

দৈনিক বঙ্গবন্ধু দেশ বার্তা : গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়ায় বোমা পুঁতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যাচেষ্টা ও রমনা বটমূলে হামলার ঘটনায় মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামি জঙ্গি নেতা আব্দুল হাই (৫৭) প্রায় ১৭ বছর ধরে আত্মগোপনে ছিলেন। তিনি জঙ্গি সংগঠন ‘হরকাতুল জিহাদ বাংলাদেশে’র (হুজি-বি) প্রতিষ্ঠাতা আমির।

আশির দশকে ভারত-পাকিস্তানের মাদরাসায় পড়াশোনা করা আব্দুল হাই আফগানিস্তানে মুজাহিদ হিসেবে যুদ্ধে অংশ নেন। ১৯৯১ সালে দেশে ফিরে হুজি-বি প্রতিষ্ঠা করেন।

১৯৯২ সালে কক্সবাজারের উখিয়ায় ট্রেনিং ক্যাম্পও চালু করেন হাই। যেখানে পার্শ্ববর্তী দেশের এক জঙ্গি নেতা অস্ত্র সরবরাহ করতেন। আব্দুল হাইসহ তিনজন সেখানে প্রশিক্ষণ দিতেন। প্রায় ৪ বছর নিরবিচ্ছিন্নভাবে তাদের কার্যক্রম চালিয়ে যাওয়ার পর ১৯৯৬ সালে যৌথ বাহিনীর অভিযানে ওই ট্রেনিং ক্যাম্প থেকে ৪১ জনকে গ্রেফতার করা হয়।

র‌্যাব জানায়, উখিয়ার ট্রেনিং ক্যাম্প বন্ধ হয়ে যাওয়ায় ক্ষিপ্ত হন জঙ্গি নেতা আব্দুল হাই। এরপর একে একে ২০০০ সালে প্রধানমন্ত্রীকে হত্যাচেষ্টা, ২০০১ সালে রমনা বটমূলে বোমা হামলা, ২০০৪ সালে বঙ্গবন্ধু এভিনিউতে গ্রেনেড হামলা, ২০০৫ সালে হবিগঞ্জে গ্রেনেড হামলায় জড়িত ছিলেন তিনি।

পলাতক জঙ্গি নেতাদের বিষয়ে নজরদারির ধারাবাহিকতায় অবশেষে বুধবার (২৫ মে) রাতে নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লা এলাকায় অভিযান চালিয়ে মুফতি আব্দুল হাইকে গ্রেফতার করা হয়।

তার বিরুদ্ধে সাতটি গ্রেফতারি পরোয়ানা রয়েছে, যার মধ্যে দুটি মৃত্যুদণ্ড ও দুটি যাবজ্জীবন কারাদণ্ড। মোট তার বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলা ১৩টি।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.

© All rights reserved © 2020
Desing & Developed BY BBDBARTA